চাঁদ-টাঁদ…

এইযেহ !
নেও ধর, তোমার চাঁদ
পাইরা নিয়া আইসা পরছি ।।
কই… কই… ?
ধর-ধর-ধর হেব্বি ভারি… তাত্তারি !
এখন যাও, একটু চাঁদ-টাঁদ ভাইজা খাও…

.
.
.

মিছা কইছি… 🤪 চাঁদ এখন এইযে এই ফেইসবুক পেইজেই কিনতে পাওয়া যায়ঃ https://www.facebook.com/techworkshopbd/

( Tech Workshop BD )

শূন্য খালি…

মাথার ভেতরে আমার বিশাল
একটা আকাশ আছে ।
আমি’ই তা খুলতে পারেনা । 
মনের ভেতর গভীর সাগর ।
আমি এখন আর স্বীকার’ই করেনা !
কালো কলিজা’টা বিরাট চুম্বক । 
মাস্টার ওস্তাদজীরা কোনদিন
নিজের দিকে টানতে শেখায় না । 

আকাশ খোলা হেলান দেওয়া,
গভীর জলে ডুইব্বা যাওয়া,
মনে মনে আকর্ষণে !  লাগবেনা তার,
বরং, আজ আমি যা পারি তা
গিলতে গিলতে সব খাওয়া ।। 
মাটিতে-মাটিতে যুদ্ধ করার এবং জেতার
বুদ্ধি করছি…. মাঝে মাঝে এ দ্বন্দ্ব মোছার
ডাস্টার খোঁজার ভানে, আর না পাওয়া !

নিজেই নিজের হজম শেষে । 
শূণ্য খালি সবই হাওয়া… 

ডানপক্ষ = বামপক্ষ

ছোটবেলার,
‘আমরা জানি’ আর ‘মনে করি’

কতটুকু জানতাম ? মনে কতটুকুই করতাম ?
আসলটাই জানতাম ? মানে,
কিভাবেই বা জেনেছিলাম ?
জানিয়েছিল যারা, নয় কেন তারা !
আমরা’ই কেন প্রমাণ করতাম ?
ডানপক্ষ = বামপক্ষ করার, যুদ্ধ-যুদ্ধ খেলা ।
আঙ্গুল ধরে, মনোযোগের সাথে শিখতাম !

এই জানায় জানা-জানি… বছরের শেষ ।
হিসাব-হিসাবে কষা-কষি… আর কয়েক
দশক… চলছে বৈকি ! পাশ নাম্বার পাইছি !
কত্ত মজা ! হাসা-হাসি…

আহারে জীবন… আহার মাটির ।।
এখনো’তো খুব্ব বাকি…
বুড়া-বুড়ির ফোকলা দাঁত । আর…
মুচকি হাসি… !

এখন, আমরা কেমন জানি ?
আর কি, কি কি মনে করি ?
আবারো, ‘প্রমাণ’ করতে… হবে নাকি ?
পাশ নাম্বার ? ছিল কততে জানি ?

বামপক্ষ আর ডানপক্ষ, সমানে-সমান হল,
সবাই তো খুব্ব জানি-পারি ।
সচেতনে জানোয়ার হইতে’ই হবে…
যেভাবেই হোক ! এই হওয়ায়, যেন না হারি !

তো, সমান ওদের, মিলন করতে পারছো নাকি ?
এখন দেখি ! বাব্বাহ ওরা-ওরাই… পারদর্শি !
সমান সমান চিহ্ন-চিহ্নে মুখ, কালা-কালি ।
ভাই-বেরাদার আলাদা লাঠি, বিয়োগ-বিবাগী…
বামে-ডানে-ডানে-বামে, যুদ্ধে-যুদ্ধে রক্তা-রক্তি ।।

হেহেহে, খাইছেরে ! ঘুমাও, তুমি… ঘুমাও !!
আমি ? বাইচ্চা যামু ।। যদি, যাইগা আমি…

ঠিক নাকি ঠিক ?

ঃ কি ! ঠিক বলছি নাকি সত্য কইছি ?
ঃ জী সত্য কইছেন…
ঃ কথাডা তাইলে ঠিক বলি নাই ?
ঃ অবশ্যই ঠিক বলছেন…
ঃ তারমানে সত্য কইনাই ?
ঃ ভুল হয়া গেছে ! মিথ্যা বলছি…


ঃ এইবার তুমি সত্যি বললা !

চিনতাম না

উড়তে যদি পারতাম খুব ভাল হইত,
তোমারে আমি চিনতাম না ।
বারেবার বারবার ছুটি হইছে এইবার, ভাইবা
অন্য মাইনশে আসলে তো তুমি, তোমার
মন চুরি করতে চাইতাম না…

তবেতো !

হে গগন !  
চাঁদ’টাকে তো প্রায়ই অর্ধেক খেয়ে ফেলো, 
এই মস্ত রাত’টাকে কি গিলতে পারো ? 

ও চন্দ্র !  
জানি, অনেক অনেক তারায় ঘেরা থাকো ।  
একটু আলো এইখানে কি দিতে পারো ? 

হ হ হ হ 😬 
তবেতো, “চাঁদের আলো” আমারই হয়া গেল… 

Do you ?

Do you really feel like YOURSELF ?  
Did you long for IT ?  
Do you truly say what YOU wanted to ?  
Have you overlooked each one of THOSE ? 

There are TRILLIONS like you out there .  
Try NOT TO BE stressed !  
Simply don’t resemble THEM !  
Do whatever your heart is treasuring “RIGHT NOW” ! 

Your SELFMADE hypocrisies will be  
Eating your SOUL gradually !  
DELETE the pretend button,  
“O” God’s bestest CREATURE… ! 

মাঝে মাঝে রাত’কে আমরা কাছে ,
দেইনা আসতে । দিন থাকে আমাদের
অনেক দূরে ।। অবাক হয়ে চন্দ্র-সূর্য
ভেবে পায়না কি করে !! মাঝে মাঝে…
শেষ হয়না রাত । একটা একটা আলো নিভে ।
তারা’রা পারছেনা আর , জানায় খোলা মনের বিদায় !
এই হেলায়-খেলায় মত্ব তাদের জানালারা !
তসবিহ গোনা ঘর নিষ্পাপ শ্রান্ত হয়ে খোদার নামে ঘুম করে… ইবাদাত শেষ । সজাগ সব দুরাচারী’রা ।
দিনের ওঁনারা ব্যাস্ত এখন দুই কাঁধের দুইজন থাকে , দেখে – দেখে স্রষ্টার সৃষ্টি এরা কত্তভাবে কত্ত নদীতে ঝাপ মারে ৷।

তবে বিশ্বাস কর…

মনে চায়, রবি ঠাকুর – কবি নজরুল অথবা,
নির্মলেন্দু গুন সাহেব’দের থেকেও
সুন্দর – ভাল – মন জুড়ানো কিছু কথা তোমায়
এক্ষুনি অনেক অনেক লেখি !
পারিনা হায় ! তবে বিশ্বাস কর,
তাঁদের বলা কথার থেকেও অনেক ভাল
আর সুন্দর করে ভালবাসার স্বপ্ন আমি,
তোমাকে – আমাকে নিয়ে দেখি…

কর্কট শহর

তোমার “কর্কট শহর” তুমিই রাখো,
কাঁকড়া হয়ে আঁকড়ে থাকো ।।
অস্পষ্ট নিষ্প্রতিভ খন্ড খন্ড,
অসহ্য অস্ফুট তমসাচ্ছন্ন !
থাকলেও বুকের মাঝে ক্যান্সার ।
আমার জগতের ইহাই নিরবিচ্ছিন্ন আলো…