চিনতাম না

উড়তে যদি পারতাম খুব ভাল হইত,
তোমারে আমি চিনতাম না ।
বারেবার বারবার ছুটি হইছে এইবার, ভাইবা
অন্য মাইনশে আসলে তো তুমি, তোমার
মন চুরি করতে চাইতাম না…

তবেতো !

হে গগন !  
চাঁদ’টাকে তো প্রায়ই অর্ধেক খেয়ে ফেলো, 
এই মস্ত রাত’টাকে কি গিলতে পারো ? 

ও চন্দ্র !  
জানি, অনেক অনেক তারায় ঘেরা থাকো ।  
একটু আলো এইখানে কি দিতে পারো ? 

হ হ হ হ 😬 
তবেতো, “চাঁদের আলো” আমারই হয়া গেল… 

Do you ?

Do you really feel like YOURSELF ?  
Did you long for IT ?  
Do you truly say what YOU wanted to ?  
Have you overlooked each one of THOSE ? 

There are TRILLIONS like you out there .  
Try NOT TO BE stressed !  
Simply don’t resemble THEM !  
Do whatever your heart is treasuring “RIGHT NOW” ! 

Your SELFMADE hypocrisies will be  
Eating your SOUL gradually !  
DELETE the pretend button,  
“O” God’s bestest CREATURE… ! 

মাঝে মাঝে রাত’কে আমরা কাছে ,
দেইনা আসতে । দিন থাকে আমাদের
অনেক দূরে ।। অবাক হয়ে চন্দ্র-সূর্য
ভেবে পায়না কি করে !! মাঝে মাঝে…
শেষ হয়না রাত । একটা একটা আলো নিভে ।
তারা’রা পারছেনা আর , জানায় খোলা মনের বিদায় !
এই হেলায়-খেলায় মত্ব তাদের জানালারা !
তসবিহ গোনা ঘর নিষ্পাপ শ্রান্ত হয়ে খোদার নামে ঘুম করে… ইবাদাত শেষ । সজাগ সব দুরাচারী’রা ।
দিনের ওঁনারা ব্যাস্ত এখন দুই কাঁধের দুইজন থাকে , দেখে – দেখে স্রষ্টার সৃষ্টি এরা কত্তভাবে কত্ত নদীতে ঝাপ মারে ৷।

তবে বিশ্বাস কর…

মনে চায়, রবি ঠাকুর – কবি নজরুল অথবা,
নির্মলেন্দু গুন সাহেব’দের থেকেও
সুন্দর – ভাল – মন জুড়ানো কিছু কথা তোমায়
এক্ষুনি অনেক অনেক লেখি !
পারিনা হায় ! তবে বিশ্বাস কর,
তাঁদের বলা কথার থেকেও অনেক ভাল
আর সুন্দর করে ভালবাসার স্বপ্ন আমি,
তোমাকে – আমাকে নিয়ে দেখি…

কর্কট শহর

তোমার “কর্কট শহর” তুমিই রাখো,
কাঁকড়া হয়ে আঁকড়ে থাকো ।।
অস্পষ্ট নিষ্প্রতিভ খন্ড খন্ড,
অসহ্য অস্ফুট তমসাচ্ছন্ন !
থাকলেও বুকের মাঝে ক্যান্সার ।
আমার জগতের ইহাই নিরবিচ্ছিন্ন আলো…

কে তুমি ?

তুমি তো সেদিন  
ঘুমিয়ে ছিলে। শান্ত ছিল, 
সব সব সব… 
আবহ ছিল ঠিক 
বৃষ্টি হওয়ার পরের মত ! 

পল্লী মাটির ঘ্রাণ ।। পেয়েছিলাম  
এই ফর্মালিন যুক্ত শহরেই 
শীতে যখন তুমি এক হাত মুঠি 
করে জড়িয়ে ধরেছিলে ।  
“আমার” 

বলেছিলে, তুমি “নিষ্ঠুর”। 
যাতে আতঙ্কিত আমি আগেও ছিলাম । 
তবুও অলৌকিকের আশা ! 
গল্পতেই যা হতেই পারে, সত্যতে না… 
যাই হোক, তা তো আমারই ছিল। 

তুমি কে ? হাহ…. 

OH G 0 D !

হইছে,  
এত কিছু কইরাও কি পারসো 
তুমি? রোধ করতে তোমার, নির্জনতা ! 

An  
Ant’s utters & diminish grins…  
O G0D OH G0D !  
Thought “i” is the little  
What’s more, forlorn ONE . 

স্বর্গেও তুমি স্বর্গীয়, সত্য ।। ( আসলে মদ )  
নরকে তুমিই নরকীয়, “মিথ্যা” 

তুমি বিশাল, তুমি এক ও অদ্বিতীয় ! 
জানায়াতো দিছো ! 

HA HA HA HA !! 

আসলে তুমি, 
এই ক্ষুদ্র থেকেও নিঃস্বংগীয় ! 

ওই আলোতে আমি চলি,  
নাকি ওই আলো আমায় চালায়? 
অই হাসিতে আমি হাসি, নাকি 
অই হাসি আমায় হাসায়…?